আজ মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ই বৈশাখ ১৪৩১

বান্দরবান সেনা রিজিয়নের ১৬ ইষ্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের উদ্যোগে মানবিক সহায়তা প্রদান।

থানচি (বান্দরবান) প্রতিনিধি : | প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার ২ এপ্রিল ২০২৪ ০৮:১৮:০০ অপরাহ্ন | পার্বত্য চট্টগ্রাম

বান্দরবান সেনা রিজিয়নের উদ্যোগে ১৬ ইষ্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে শান্তি সম্প্রীতি উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় স্থানীয় অসহায়, দুঃস্থ ও সমস্যা পীড়িতদের মাঝে মানবিক সহায়তা হিসেবে খাদ্য সামগ্রী এবং আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে সেলাই মেশিন ও স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা সহায়ক সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

 

মঙ্গলবার (০২ এপ্রিল) বাকলাইপাড়া সেনা ক্যাম্পে, ৬৯ পদাতিক ব্রিগেড ও বান্দরবান সেনা রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ মেহেদী হাসান এএফডব্লিউসি, পিএসসি এসব খাদ্য সামগ্রী ও সহায়তা উপকার ভোগীদের হাতে তুলে দেন। 

 

সহায়তা সামগ্রী বিতরণ কালে ১৬ ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্টের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল সরদার জুলকার নাইন পিএসসি ও বাকলাই পাড়া সেনা ক্যাম্পের ক্যাম্প কমান্ডারসহ পদস্থ কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

 

খাদ্য সহায়তা ও আত্মকর্মসংস্থান সামগ্রী বিতরণকালে রিজিয়ন কমান্ডার বলেন, সেনাবাহিনী প্রতিরক্ষার পাশাপাশি সব সময়ই হত দরিদ্র, অসহায় ও সমস্যা পীড়িত মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়ে তাদের সমস্যা দূর করতে নিরলস ভাবে চেষ্টা চালিয়ে আসছে। 

 

 

তিনি বলেন, আমাদের লক্ষ্য হলো পার্বত্য চট্টগ্রামের জনগণের মাঝে সম্প্রীতি ও শান্তি সুনিশ্চিত করা। জাতি-ধর্ম, পাহাড়ি-বাঙালী নির্বিশেষে সকল অসহায় মানুষের জন্যই আমরা উদার মনে মুক্তহস্তে এ ধরণের সহায়তা বিতরণ করে থাকি।

 

 

উল্লেখ্য যে, স্থানীয় হত দরিদ্র, অসহায় ও দুস্থ পাহাড়িদের মাঝে আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে বাকলাইপাড়া বম সম্প্রদায়ের মাঝে ২টি সেলাই মেশিন, এবং বাকলাইপাড়া, প্রাতাপারা ও বাসিরাম পাড়ার কোমলমতি শতাধিক শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা সহায়ক সামগ্রী এবং দোলাচরণ, কংলাই  ও কাইথন পাড়ার মুরং সম্প্রদায়ের শতাধিক পরিবারের খাদ্য ও দৈনন্দিন সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

 

উপস্থিত সুবিধাভোগী পাহাড়ি জনগোষ্ঠী বলেন, চলতি বছরে অর্থনৈতিক অসুবিধার কারণে আমরা নিরাশায় দিন যাপন করছিলাম কিন্তু আমাদের নিরাশা একটি আশার স্বপ্ন দেখিয়েছে সেনাবাহিনী, সুতরাং তাদেরকে অভিনন্দন ও আন্তরিকভাবে আশীর্বাদ করি। ভবিষ্যতেও এ ধরনের সহায়তা অব্যাহত থাকবে বলে আমরা আশা করি।