আজ শনিবার ২৫ মে ২০২৪, ১০ই জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
উপজেলা নির্বাচন

রাত পোহালেই মহেশখালীতে উৎস শঙ্কার মাঝে ভোট, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিরাপত্তা বলয়

সরওয়ার কামাল, মহেশখালী : | প্রকাশের সময় : বুধবার ৮ মে ২০২৪ ০১:১৩:০০ অপরাহ্ন | দেশ প্রান্তর

মহেশখালী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৫ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ ও মহিলাসহ সকল প্রার্থীর প্রচারণা শেষ হয়েছে গত সোমবার মধ্যরাতে। 

 মঙ্গলবার বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রিজাইডিং, সহকারী প্রিজাইডিং ও পোলিং অফিসারসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীগণ ইলেকট্রিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম)সহ যাবতীয় সরঞ্জাম নিয়ে উপজেলার প্রতিটা ভোটকেন্দ্রে অবস্থান করছেন। ৮ই মে সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে একটানা ভোট গ্রহণ চলবে।

 

এদিকে নির্বাচনে প্রথম থেকে হাবিব উল্লাহ টুপি, জয়নাল আবেদীন দোয়াত কলম দ্বিমুখী লড়াইয়ের সম্ভাবনাই পরিষ্কার হলেও মোটর সাইকেল গোলাম কুদ্দুস চৌধুরীর সাথে হাড্ডা হাড্ডি প্রতিযোগিতা করবে বলে শেষ মুর্হুতে এসে তা অনেকটা পরিষ্কার। তবে কেউ কেউ উত্তরের গোলাম কুদ্দুস চৌধুরী এক মাত্র প্রার্থী হওয়ায় বিপুল সংখ্যাক ভোট পাবেন এমনটি বলছেন ভোটাররা।

এদিকে মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার ৮৬ টি ভোট কেন্দ্রের ৫৭৮ টি বুথের সকল ভোট সরঞ্জামাদি নিয়ে নিরাপত্তাসহকারে ভোট কেন্দ্রে পৌঁছেছেন প্রিসাইডিং কর্মকর্তারা।

কক্সবাজার জেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদের প্রথম ধাপের ভোটে  উপজেলায় মোট চেয়ারম্যান পদের প্রার্থী ৫ জন।

এদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে কালারমারছড়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব গোলাম কুদ্দুস চৌধুরী (মোটর সাইকেল), হাবিব উল্লাহ (টুপি), জয়নাল আবেদীন (আনারস) প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী মাঠে সরগরম প্রচারণায় গণজোয়ার সৃষ্টি করেছেন। শরীফ বাদশাহ (আনারস) নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। আব্দুল্লাহ আল নিশান ( চিংড়ি মাছ) তিনি ডামি প্রার্থী হওয়ায় প্রতিযোগিতায় আসবেনা।

তারা তিনজনে বিজয়ের ব্যাপারে শতভাগ নির্ভার (আশাবাদী)। তবে বুধবার রাত ৮টা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বিজয়ী কে হয়েছেন।

 

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটানিং কর্মকর্তা বিমেলেন্দু কিশোর পাল   বলেন, ইভিএমের মাধ্যমে ৮৬ টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।  মোট ভোটার সংখ্যা ২ লক্ষ ৫৭ হাজার ৪ শত ৫৮ জন। তারমধ্যে, এক লক্ষ ৩৭ হাজার ৮৯০ জন পুরুষ ভোটার এবং ১ লক্ষ ১৯ হাজার ৫৬৮ জন মহিলা ভোটার। 

৮৬ কেন্দ্রের ৩৭৮ টি বুথে ভোট গ্রহনের সকল প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন করা হয়েছে। দুপুরের পর প্রিসাইডিং কর্মকর্তারা জনবল ও ভোট সরঞ্জামাদি নিয়ে ভোট কেন্দ্রে গেছেন।

এছাড়া সুষ্ঠু,অবাধ ও নিরপেক্ষভাবে ভোট গ্রহণের জন্য পৌরসভাসহ প্রতিটি ইউনিয়নে ১জন করে মোট ১০ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ র্্যাব, বিজিপি, কোস্ট গার্ড, পুলিশ এবং পর্যাপ্ত আনসার বাহিনী মাঠে থাকবে।