আজ বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারী ২০২২, ৭ই মাঘ ১৪২৮

বোয়ালখালীতে মৃৎ শিল্পীর সরস্বতী প্রতিমা ভাঙচুর

বোয়ালখালী প্রতিনিধি: | প্রকাশের সময় : শনিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২২ ০৪:১৬:০০ অপরাহ্ন | চট্টমেট্টো

চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে আসন্ন সরস্বতী পূজা উপলক্ষে গড়া ৩৫টি সরস্বতী প্রতিমা ভেঙে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) রাতে উপজেলার পূর্ব শাকপুরার ঐতিহ্যবাহী লালার হাট আশ্রায়ণ প্রকল্পের পাশে এ ঘটনা ঘটেছে। মৃৎ শিল্পীর বাসু দেব পাল এসব প্রতিমা বিক্রির জন্য গড়েছিলেন। 

জানা গেছে, বৃটিশ আমল থেকে ওই এলাকায় প্রতিমা গড়ে আসছিলেন মৃৎ শিল্পী হরিপদ পাল ও তার ছেলে বাসু দেব পাল। হরিপদ পাল মারা যাওয়ার পর বাসু দেব পাল এ ধারা অব্যাহত রেখেছেন।

 

বাসু দেব পাল বলেন, লালার হাটে প্রতিবছর তিনি প্রতিমা গড়ে আসছেন।  ৮৫ বছর ধরে তারা এ এলাকায় প্রতিমা তৈরী করে আসছেন। আগামী ৫ ফেব্রæয়ারী  সরস্বতী পূজা উপলক্ষে প্রতিমাগুলো বানানো হচ্ছিল। উন্মুক্ত স্থানে বাঁশের বেড়ার মাধ্যমে ঘেরা দিয়ে সাদা পর্দায় ঢেকে নির্মাণাধীন প্রতিমাগুলো রাখা ছিল। আগে কোনো সময় এ ধরণের ঘটনা ঘটেনি। শনিবার সকালে তার গড়া ৩৫টি সরস্বতী প্রতিমা ভাঙা দেখতে পান। এর বেশির ভাগই অগ্রীম বায়না নেওয়া।   

 

খবর পেয়ে চট্টগ্রামের অতিরিক্তি পুলিশ সুপার (উত্তর) মো. কবির আহমেদ,থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আবদুল করিম ও বোয়ালখালী পূজা উদযাপন পরিষদের সদস্য সচিব অমিত লালা 

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন । 

এ ঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দা সুদীপ্ত বিশ্বাস বিভু বলেন, বাসুদেব পাল আমাদের গ্রামে সরস্বতীর মূর্তি গড়ে। ছোটবেলায় স্কুলে যাওয়ার পথে ঘন্টার পর ঘন্টা ঠাঁই দাঁড়িয়ে থেকে বাসুর মূর্তি গড়া দেখতাম। সবাইকে বিশ্বাস করে বাসু প্রতিমাগুলো রাখেন উন্মুক্ত স্থানে। কখনো পাহারা দেওয়ার প্রয়োজন মনে করেননি।  কে বা কারা রাতের আঁধারে ভেঙে দিয়েছে বাসুর গড়া সরস্বতী প্রতিমা। 

বোয়ালখালী পূজা উদযাপন পরিষদের সদস্য সচিব অমিত লালা বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এই এলাকায় একটি কুচক্রী মহল পরিকল্পিতভাবে অশান্তি সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে। বাসু দেব পালের গড়া প্রতিমা ভাঙচুর করে দীর্ঘদিন বিশ্বাসকে গুড়িয়ে দেওয়া হলো। আমরা এর সুষ্ট তদন্ত চাই।

 ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুল করিম বলেন, ‘কারখানা বলা হলেও রাস্তার পাশে উন্মুক্ত স্থানে অরক্ষিতভাবে প্রতিমাগুলো রাখা হয়েছিল। কেউ পরিকল্পিতভাবে প্রতিমাগুলো ভেঙেছে বলে মনে হয়নি। আশ্রায়ণ প্রকল্পের ছোট বাচ্চারা হয়ত খেলার ছলে বা ঠেলাগাড়ি, মিনিট্রাকে বাঁশ নেওয়ার সময় অন্ধকারে দুর্ঘটনা ঘটেতে পারে। তবে আমরা বিষয়টি  তদন্ত করে দেখছি।’ প্রতিমা রক্ষায় এখানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হচ্ছে বলে তিনি জানান।

 

 

 



সবচেয়ে জনপ্রিয়