আজ শনিবার ২২ জানুয়ারী ২০২২, ৯ই মাঘ ১৪২৮
বেপজা ক্ষুদ্ধ জনতার মানববন্ধন

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর ডাবরখালী খালের পানিপ্রবাহ বন্ধ করেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক, মিরসরাই: | প্রকাশের সময় : শনিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২২ ০৩:৩৭:০০ অপরাহ্ন | উত্তর চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে ডাবরখালী নামের একটি খালের পানি প্রবাহ বন্ধ করে দেয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে ক্ষুদ্ধ জনতা। শনিবার (১৫ জানুয়ারি) সকাল ১১টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগর সড়কের চরশরৎ এলাকায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে জনপ্রতিনিধিসহ কয়েকশ লোক জড়ো হয়। 

এসময় তারা দাবি করেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগরে বাংলাদেশ রপ্তানী প্রক্রিয়াকরণ এলাকা কর্তৃপক্ষের (বেপজা) নিজস্ব অর্থনৈতিক অঞ্চলের উন্নয়ন কাজের কারণে স্থানীয় ডাবরখালী নামের একটি গুরুত্বপূর্ণ খালের পানি প্রবাহ বন্ধ হয়ে গেছে। এতে উপজলার ইছাখালী ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রাম প্লাবিত হচ্ছে। বর্ষায় যার ভয়াবহতা আরো তীব্র হবে।

মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করে স্থানীয় ইছাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল মোস্তফা দাবি করেন, ‘আমার ইউনিয়ন এলাকার চরশরৎ হয়ে বয়ে চলা ডাবরখালী খালের পানি এতদিন বঙ্গোপসাগরে পতিত হতো। বেপজা তাদের অর্থনৈতিক অঞ্চলের উন্নয়ন কাজ করতে গিয়ে খালের পানি প্রবাহ পুরোপুরি বন্ধ করে দিয়েছে। বারবার আমরা যোগাযোগ করার পরও কোন সুরাহা করেনি। বরং এখন শুকনো মৌসুম হলেও খালের উপছে পড়ছে গ্রামের পর গ্রামে। এটি প্রতিকার হওয়া পর্যন্ত মানুষ আন্দোলন চালিয়ে যাবে।’

জনতার মানববন্ধন চলাকালীণ সময়ে ঘটনাস্থলে যান মিরসরাই উপজেলা চেয়ারম্যান মো. জসিম উদ্দিন ও মিরসরাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মিনহাজুর রহমান। 

এসময় উপজেলা চেয়ারম্যান মো. জসিম উদ্দিন বলেন,  ‘জনতার মানবন্ধনের খবরে আমরা ঘটনাস্থলে যাই এবং তাৎক্ষণিক বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) নির্বাহী চেয়ারম্যানের সাথে বৈঠক করেছি। সেখানে খাল বন্ধ করার পুরো চিত্র আমরা উনাকে দেখিয়েছি। তিনি আমাদের আশ^স্ত করেছেন আগামী বর্ষা মৌসুম আসার আগেই এটি বাস্তবভিত্তিক সুরাহা করবেন।’ 

উপজেলা চেয়ারম্যান আরো বলেন, ‘খালটি ভরাট করার আগেও আমরা খালটি উন্মুক্ত রাখার ব্যাপারে বেপজার সাথে বৈঠক করেছিলাম। তারা এটি না মেনে ভরাট করে উন্নয়ন কাজ করছে। আমরা বলেছি বর্ষার আগে সমাধান না হলে জনগণকে নিয়ে আবারো আন্দোলনে যাবো।’ 

এদিকে এ প্রসঙ্গে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগরের প্রজেক্ট ডিরেক্টর আবদুল্লাহ আল মোহাম্মদ ফারুক জানান, ‘এ বিষয়ে বেপজার কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক হয়েছে। ইতোমধ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। শীঘ্রই কারিগরি টিম বসে খালের মূল নকশা ঠিক রেখে এটির সুষ্ঠু সমাধান করবেন।