আজ শুক্রবার ১ মার্চ ২০২৪, ১৮ই ফাল্গুন ১৪৩০

ফটিকছড়ির দুই ইউপি নির্বাচন প্রার্থীদের মনোনয়ন পত্র জমা: চমক দেখালেন খিরামের সৌরভ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফটিকছড়ি : | প্রকাশের সময় : সোমবার ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ০৭:৫০:০০ অপরাহ্ন | উত্তর চট্টগ্রাম

আসন্ন ফটিকছড়ির খিরাম ও নানুপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র জমা দিলেন চেয়ারম্যান, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ও সাধারন সদস্য পদের প্রার্থীরা। 

 

১২ ফেব্রুয়ারী (সোমবার) সকাল থেকে মনোনয়ন পত্র জমা দিতে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয়ে উপস্থিত হতে হন প্রার্থীরা। উৎসবমুখর পরিবেশে প্রার্থীরা নেতা-কর্মীদের নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন। এসময় পুরো উপজেলা চত্বর প্রার্থীদের কর্মী সমর্থকদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠে।

 

উপজেলা নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা যায়, সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত খিরাম ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন পত্র জমা দেন খিরামের বর্তমান চেয়ারম্যান সোহরাব হোসাইন সৌরভ, প্রবাসী মুহাম্মদ হাসান ও গত নির্বাচনে পরাজিত প্রার্থী শহিদুল আলম। অন্যদিকে নানুপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন পত্র জমা দেন দুবাই প্রবাসী ব্যবসায়ী নুরুন্নবী রৌশন। এসময় শতশত নেতাকর্মী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সাবেক উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ্ব ফখরুল আনোয়ার, সৈয়দ মুহাম্মদ বাকের, কৃষকলীগ নেতা মোতাহের হোসেন বাবুল, ব্যবসায়ী আইয়ুব আলীসহ আরোও অনেকে। এছাড়াও দুই ইউনিয়নে সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে বিপুল সংখ্যক প্রার্থী আনন্দঘন পরিবেশে তাদের মনোনয়ন পত্র জমা দেন। 

 

এদিকে মনোনয়ন পত্র জমাদানে চমক দেখালেন খিরাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান সোহরাব হোসাইন সৌরভ। তিনি এলাকার প্রবীন ও বয়োজ্যৈষ্ঠদের নিয়ে সকাল সকাল উপজেলা চত্বরে হাজির হন। উপস্থিত হওয়া মুরব্বিদের বেশিরভাগের পরনে ছিল সাদা পাঞ্জাবি ও মাথায় টুপি। মনোনয়ন পত্র জমাদান কার্যক্রমে যেখানে দেখা যায় তরুণদের আধিক্য, সেখানে সৌরভ চেয়ারম্যানের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ চোখে পড়ার মতো। পরে সবাই উপজেলা চত্বরে দোয়া ও মুনাজাতে অংশ নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন। যা মনোনয়ন পত্র জমাদান কার্যক্রমে চমক হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে।

 

এসময় চেয়ারম্যান সৌরভ বলেন, 'বিগত পাঁচ বছর দায়িত্ব পালন করার মধ্যদিয়ে মানুষের ভালোবাসা ও আন্তরিকতা অর্জন করেছি। আজকে মনোনয়ন পত্র জমা দানে সেটি আরও একটি বড় প্রমাণ।'

 

এসময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক ইউপি সদস্য মুক্তিযোদ্ধা হাফেজুর রহমান, নুরুল আবছার মেম্বার, ব্যবসায়ী মো: হোসেন, মো. জাহাঙ্গীর মেম্বার, হাফেজুর রহমান, আলিম উদ্দিন, আবু তাহের, আবুল ফয়েজ, এজেহার মিয়া, আবুল ফজল, আলমগীর ,আব্দুর শুক্কুর, মো: রফিক, নুরুল আলম, জিয়াউর রহমান, মাহবুবল আলম, আবু তৈয়ুব, মোবারক হোসেন, এবাদুল্লাহ, বাহাদুর, বাবু, মহিউদ্দিন প্রমুখ।