আজ বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ই শ্রাবণ ১৪৩১

এনজিওকর্মী পরিচয়ে অস্ত্র ব্যবসা করতেন তিনি

ইমাম খাইর, কক্সবাজার : | প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার ২১ নভেম্বর ২০২৩ ০৭:৪৬:০০ অপরাহ্ন | কক্সবাজার প্রতিদিন

আরিফ উল্লাহ (২৫)। সুদর্শন চেহারা আর শুদ্ধ বাংলায় বাচনভঙ্গি। পেশায় এনজিওকর্মী। তাতেই পুলিশকে বোকা বানানোর চেষ্টা ছিল তার। কিন্তু বিধিবাম, পুলিশ কর্মকর্তাদের দক্ষতার কাছে হেরে গেছেন এই অস্ত্র ব্যবসায়ী। দুইটি এলজিসহ ধরা পড়েছেন আরিফ উল্লাহ। তিনি মহেশখালী উপজেলার হোয়ানক ইউনিয়নের পানিরছড়ার বারঘর পাড়ার আবুল কালামের ছেলে।

 

মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) দুপুরে কক্সবাজার মডেল থানা প্রাঙ্গণে প্রেস ব্রিফিং এসব তথ্য জানিয়েছেন  অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. মিজানুর রহমান। 

 

তিনি জানান, আরিফ উল্লাহ এক বছর ধরে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের কাছে অস্ত্র সরবরাহ করে আসছেন। প্রতিটি অস্ত্রের মূ্ল্য ১৮ হাজার টাকা। যা তৈরি হয় মহেশখালীর গহীন পাহাড়ের কারখানায়।

 

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে পুলিশ বলছে, এনজিওকর্মী পরিচয়ে এরআগেও কয়েকবার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অস্ত্র পাচার করে আরিফ। ধারাবাহিকতায় সোমবারও অস্ত্রের চালান নিয়ে যাচ্ছিলেন। এই খবর পুলিশ আগেভাগে জেনে যায়। ওই রাতেই শহরের ৬নং ঘাট থেকে তাকে অস্ত্রসহ গ্রেফতার করা হয়। সুদর্শন চেহারা বা বাচন ভঙ্গির কারণে পুলিশকে বেশ বেকায়দায় ফেলার চেষ্টা ছিল এই অস্ত্র ব্যবসায়ীর। কিন্তু পুলিশের দক্ষতায় আটকা তিনি। 

 

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. মিজানুর রহমান বলেন, এনজিওকর্মী পরিচয় বারবার অস্ত্র নিয়ে যেতো আরিফ। দীর্ঘদিন ধরে তার উপর নজর রাখছিলো পুলিশ। অবশেষে ধরা পড়লো। তার সিন্ডিকেটের ব্যাপারে তথ্য নেয়া হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে সবাইকে গ্রেফতার করা হয়।