আজ রবিবার ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২২শে মাঘ ১৪২৯

স্ট্রোক পরবর্তী সার্জারির প্রয়োজনীয়তা

ডা. মো: আনিসুল ইসলাম খান :- | প্রকাশের সময় : সোমবার ৩১ অক্টোবর ২০২২ ০৬:৪০:০০ অপরাহ্ন | মতামত

আমরা মূলত দুই ধরণের স্ট্রোকের সাথে পরিচিত; ‘হেমোরেজিক’ ও ‘ইস্কিমিক’। হেমোরেজিক স্ট্রোক ব্রেন হ্যামারেজ নামেও পরিচিত। এর ফলে সাধারণত মস্তিষ্কের রক্ত চলাচলের নালী ছিঁড়ে যায়, যার ফলে অবস্থা মুহূর্তের মধ্যেই জটিল হতে পারে। অপরদিকে, ইস্কিমিক স্ট্রোকে মস্তিষ্কে রক্ত চলাচল বাধাপ্রাপ্ত হয়, এমনকি বন্ধও হয়ে যায়। সহজভাবে বললে, যখন মস্তিষ্কের কোন অংশে রক্ত সরবরাহ ব‌ন্ধ হয়ে গিয়ে মস্তিষ্কের কোষগুলো ক্ষতিগ্রস্থ হয়, তখন তাকে ইস্কেমিক স্ট্রোক বলে। স্ট্রোকের চিকিৎসা কখনো কখনো যেমন সহজ, কখনো আবার কিছুটা জটিল। তবে সেটি নির্ভর করে রোগীর অবস্থা এবং তাৎক্ষনিক পদক্ষেপের উপর। স্ট্রোকের পর রোগী অজ্ঞান হয়ে গেলে ভয় না পেয়ে তাৎক্ষণিক চিকিৎসকের পরামর্শ অথবা নিকটস্থ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া উচিৎ। প্রাথমিক ভাবেও কিছু পদক্ষেপ নেওয়া যেতে পারে, যার মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো শ্বাসনালী, শ্বাস-প্রশ্বাস ও রক্ত সঞ্চালন সচল রাখা। এছাড়া রোগীকে একদিকে কাত করে, বালিশ ছাড়া মাথা নিচু করে শোয়ানো, চোখের প্রতি লক্ষ্য রাখা, মূত্রথলির যত্ন নেওয়া, প্রয়োজনে ক্যাথেটার ব্যবহার করা ইত্যাদি বিষয়গুলো নিশ্চিত করা প্রয়োজন। প্রাথমিকভাবে উল্লেখিত পদক্ষেপগুলো গ্রহণের মাধ্যমে রোগীকে যেকোন বড় জটিলতা থেকে সুরক্ষিত রাখা সম্ভব। তবে রোগীর অবস্থাভেদে যদি সার্জারির প্রয়োজন হয় তবে তা অবহেলা করা উচিৎ নয়। মধ্যবয়স্ক রোগী বা যাদের বয়স ৪০ এর কম, তাদের ক্ষেত্রে মূলত সার্জারি প্রয়োজন হয়। রক্ত জমাট বাঁধলে তা যত দ্রুত সম্ভব ক্রেনিয়েক্টমি (মাথার খুলি কেটে) করে সাবধানতার সাথে সার্জারি করতে হয়, নাহলে ঝুঁকি বেড়ে যায়। অনেক রোগীই প্রাথমিক পর্যায়ে গাইডলাইন ফলো করে না, ফলে তারা স্বাস্থ্যঝুঁকিতে ভোগেন। সুতরাং, এই বিষয়গুলো অবহেলা করা যাবে না। স্ট্রোকের ক্ষেত্রে ফিজিওথেরাপি অন্যতম একটি চিকিৎসা পদ্ধতি। অনেক সময় দেখা যায়, বিশেষ করে গ্রামাঞ্চল বা প্রান্তিক অঞ্চলগুলোয় ফিজিওথেরাপি নিয়ে জনমনে সচেতনতা খুবই কম। অনেক রোগীরই স্ট্রোকের পর হাত-পা বেঁকে যায় এবং বাকি জীবন এভাবেই থেকে যায়। সেসব রোগীদের জন্য ফিজিওথেরাপী ভীষণ উপকারী। অনেকে ভাবেন ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা কোন কাজে আসে না। তবে ধারণাটি সম্পূর্ণ ভুল। তবে সঠিক স্থানে ও সঠিকভাবে চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে।

 সিনিয়র কনসালটেন্ট ও

কো-অর্ডিনেটর, নিউরোসার্জারি বিভাগ

 এভারকেয়ার হসপিটাল চট্টগ্রাম।