আজ সোমবার ২৭ জুন ২০২২, ১৩ই আষাঢ় ১৪২৯

পদ্মারবুকে দেশের দীর্ঘতম সেতুনির্মাণে ১২০টিরও বেশি স্যানি মেশিন ব্যবহার করা হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক : | প্রকাশের সময় : বুধবার ২২ জুন ২০২২ ০৬:১৬:০০ অপরাহ্ন | দেশ প্রান্তর

পদ্মাবহুমুখী সেতুনির্মাণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে বাংলাদেশে আর ও এশটি মাইল ফলক অর্জন করলো স্যানি। বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং প্রকল্প হিসেবে বিবেচিত, উপরেচার লেনের হাইওয়ে এবং নিচে একটি একক-ট্র্যাক রেলপথ সমৃদ্ধ এই রোড রেল সেতুতে ১২০টিরও বেশিস্যানি মেশিনের ব্যবহার হয়েছে। স্প্যান ও মোট দৈর্ঘ্যেরহিসেবে দেশের দীর্ঘতম এই সেতু দেশের জিডিপি ২-৩% বাড়াবে বলে আশা করা হচ্ছে। আগামী ২৫ জুন, ২০২২ তারিখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিক ভাবে সেতুটির উদ্বোধন করবেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্যানি’রব্যবস্থাপনা দলও উপস্থিত থাকবে। 

স্যানি গ্রুপ-এরভাইস প্রেসিডেন্ট এবং স্যানি বাংলাদেশের চেয়ারম্যান দীপাক গার্গ বলেন, “দেশের উত্তর ও পূর্বাঞ্চলের সাথে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সংযোগ স্থাপন করতে যাওয়া পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজের মতো একটি মর্যাদা পূর্ণ প্রকল্পের অংশীদার হতে পারা স্যানি ও বাংলাদেশে স্যানি’র চ্যানেল পার্টনার পাওয়ার ভিশনগ্রুপের জন্য অত্যন্ত গর্বের বিষয়। এই সেতুর নির্মাণ কাজের সফল সমাপ্তি শুধুমাত্র স্যানি মেশিনের আন্তর্জাতিক মানকেই প্রতিফলিত করেনা বরং এটি বাংলাদেশের অবকাঠামো উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হয়ে উঠতে আমাদেও সাহায্য করেছে। বাংলাদেশ হোক কিংবা বিশ্বের যে কোনো প্রান্তে, জাতি গঠনের কাজ একটি চলমান প্রক্রিয়া। এই প্রক্রিয়ায় আমরা আমাদের দক্ষতা প্রমাণ করতে পেওে অত্যন্ত আনন্দিত এবং ভবিষ্যতেও এর অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে কাজ করতে চাই।”

অবস্থান ও আকারের বিচাওে পদ্মা সেতু নির্মাণের কাজটা অনেক বেশি চ্যালেঞ্জিং ছিল। প্রযুক্তি, উৎপাদনশীলতা এবং কার্যকারিতার বিচারে সংশ্লিষ্ট শিল্পে স্যানি’র মেশিন অতুলনীয়, যা নির্মাণ প্রক্রিয়া চলার পথে আসাসমস্ত প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে বাংলাদেশ সরকারের প্রত্যাশা পূরণ করতে সক্ষম হয়েছে। ভূমি ও পানির মধ্যে নির্মাণ যন্ত্রপাতির কৌশলের জন্য প্রয়োজন নির্ভুলতা এবং নিখুঁত সময়। মেশিন অপারেটররা সহজ চালচলন বৈশিষ্ট্য ও এরগোনোমিক ডিজাইনের মাধ্যমে এটি করে থাকেন, যারসাহায্যে কঠিনতম ভূখণ্ডেওসর্বো”চকর্ম ক্ষমতা নিশ্চিত করা যায়। প্রকল্পটির জন্য ১২২ মিটার গভীরে পাইলিংয়ের প্রয়োজনীয়তা এবং উচ্চ জোয়ার পাইলিংয়ের কাজে অতিরিক্ত চ্যালেঞ্জ জুড়ে দিয়ে ছিল। কিন্তুু স্যানি’র এসআর ২৮৫আর ও এসআর ২৩৫ পাইলিং রিগস দক্ষতার সাথে এই চ্যালেঞ্জিং মেগা প্রকল্পের পাইলিং চাহিদা পূরণ করতে সক্ষম হয়েছে।

স্বপ্নের এই প্রকল্পে ১৩টি ক্রলার ক্রেন, ২টি রাফট্যারেন ক্রেন, ৩টি টাওয়ার ক্রেন, ৪৫টি এক্সক্যাভেটরএবং ৫টি মোটর গ্রেডারব্যবহারকরাহয়েছে।  

দেশের বিভিন্ন মেগা উন্নয়ন প্রকল্পে স্যানি’র মেশিন ব্যবহৃত হয়েছে, যাদেও মধ্যে; ঢাকা বিমানবন্দর তৃতীয় টার্মিনাল প্রকল্প, ঢাকা মেট্রো রেলওয়ে প্রকল্প, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রকল্প, কক্সবাজার বাজার বিমান বন্দও প্রকল্প, ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্প এবং ঢাকা রিংরোড প্রকল্প উল্লেখযোগ্য। ঢাকা বিমানবন্দও প্রকল্পের জন্য স্যানি সবর্ বৃহৎ আরএমসি প্ল্যান্ট স্থাপন করেছে। স্যানি’র ৩২০ টনের অধিকধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন ক্রলার ক্রেন এই প্রকল্পের কাজে ব্যবহৃত সবচেয়ে বড় ক্রলার ক্রেন। হযরতশাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দও সম্প্রসারণ প্রকল্পের জন্য দেশের বৃহত্তম ব্যাচিং প্ল্যান্টও স্থাপন করেছে স্যানি। প্রতিষ্ঠানটির ১৬০০টিরও বেশি মেশিন বর্তমানে বাংলাদেশের বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে ভূমিকা পালন করছে। 

স্যানিসম্পর্কে- ২০০২ সালে যাত্র াশুরু করা স্যানিইন্ডিয়াভারত ও দক্ষিণ এশিয়ার সর্ববৃহৎ নির্মাণসরঞ্জামাদি সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান। ২০১২ সালে, চাকান এবং পুনে-তে আরঅ্যান্ডডি, উৎপাদন, মানযাচাই, পরীক্ষাএবংসার্ভিসের অবকাঠামো গত উন্নয়নের লক্ষ্যে আইএনআর ৭৫০ কোটিরও বেশি অর্থ বিনিয়োগকরেছেপ্রতিষ্ঠানটি। এর মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটিএক্সক্যাভেটর, হেভিইকুইপমেন্ট, কংক্রিট মেশিনারীএবংরিনিউয়েবলএনার্জি-এর মতো ৪টি ব্যবসায়পরিচালনাকরছে। বর্তমানেপ্রতিষ্ঠানটিএক্সক্যাভেটর, ট্রাক-মাউন্টেড ক্রেনস, যেকোনভূখন্ডেব্যবহারোপযোগী ক্রেনস, ক্রলার ক্রেনস, ট্রান্সিটমিক্সারস, ব্যাচিংপ্ল্যান্টস, বুমপাম্পস, পাইলিংরিগস, মোটর গ্রেডার্স, প্যাভার্স, কম্পেক্টরস, রিচ স্ট্যাকার্স, রাবারটায়ার্ড গ্যান্ট্রি ক্রেনস, রেল-মাউন্টেড ক্রেনস, মাইনিংইকুইম্পেন্ট, উইন্ড টারবাইন জেনেরেটরস সহ আর ও অনেকপণ্য সরবরাহ করছে। গ্রাহকদেও চাহিদা পূরণে ও প্রয়োজনীয় সেবাপ্রদানকরতেভারতজুড়ে ৪১টি ডিলারএবং ২১০টি টাচ-পয়েন্টনিয়েএকটি শক্তিশালী নেটওয়ার্ক গড়েতুলেছেপ্রতিষ্ঠানটি। ভারতসহ দক্ষিণএশিয়ারবিভিন্ন দেশে অবকাঠামোগতউন্নয়নসাধনেএখনপর্যন্ত ২২ হাজারেরও বেশি সরঞ্জাম সরবরাহ করেছে স্যানি। নিজেদেরপণ্যের বৃহৎ পরিসর, মজবুতনির্মাণ, সেবাগতপ্রতিশ্রুতি, উদ্ভাবনীসমাধানএবং বৈশ্বিক দক্ষতারমাধ্যমে বিভিন্ননির্মাণসরঞ্জামভিত্তিক ক্ষেত্রে স্যানি ইন্ডিয়া বাজার সঞ্চালকের ক্ষ্যাতি অর্জনকরেছে। ভারতসরকার কর্তৃক গৃহীত অবকাঠামো গত উন্নয়ন এবংআধুনিকায়নের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠানটি প্রশংসনীয় অবদান রাখছে।