চট্টগ্রাম, শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১

[bangla_day]

বিষয় :

প্রকাশ :  ২০২১-১০-১১ ২৩:৩৫:৪৮

আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ আজিজুল হক শেরে বাংলা (রাহ্.)

এম এ আক্কাছ নূরী :
জন্ম ও বংশ :
আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ আজিজুল হক আলক্বাদেরী শেরে বাংলা (রাহ্.) ১৯০৬ খ্রিষ্টাব্দের ৮ ফেব্রুয়ারী, ১৩২৩ হিজরীর ১৪ যিলহজ, ১৩১২ বঙ্গাব্দের ২৫ মাঘ, বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার মেখল গ্রামের সম্ভ্রান্ত সৈয়দ পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। তাঁর পিতা সৈয়দ মুহাম্মদ আব্দুল হামীদ (রাহ.) ও মাতা সৈয়দা মায়মুনা খাতুন। তাঁর দাদা সৈয়দ মুহাম্মদ হাশমত উল্লাহ। তিনি পিতা-মাতা উভয় বংশধারায় সৈয়দ ছিলেন। তিনি রাউজান উপজেলার সুলতানপুর হাজীপাড়ার হযরত আল্লামা কাযী মুহাম্মদ এজাবত উল্লাহ শাহ (রাহ.), হাটহাজারী উপজেলার ফরহাদাবাদের হযরত আল্লামা সৈয়দ আমিনুল হক ফরহাদাবাদী (রাহ.) ও হাটহাজারী উপজেলার লালিয়ারহাটস্থ হযরত আল্লামা সৈয়দ হোসাইনুজ্জামান এর নিকটাত্মীয়।
শিক্ষা :
তিনি শৈশবে পিতার নিকট প্রাথমিক শিক্ষা লাভ করেন। হাটহাজারী আল জামিয়াাতুল আহলিয়া দারুল উলূম মুঈনুল ইসলাম মাদরাসায় ভর্তি হন। তিনি অসাধারণ জ্ঞান পিপাসু ও তেজস্বী ছাত্র ছিলেন। সমসাময়িক মেধাবী ছাত্রদের মধ্যে তিনি অন্যতম শীর্ষস্থানীয় ছিলেন। তিনি একবার যা পড়তেন, শুনতেন ও দেখতেন তা কখনো ভুলতেন না। এ জন্য অনেকে তাকে জিনের সন্তান বলত। দাওরাহ্-এ হাদীস পাশের পর উচ্চ শিক্ষা অর্জনের জন্য ভারতে গমন করেন। দিল্লীর বিখ্যাত ফতেহ্পুর আলিয়া মাদরাসায় ভর্তি হয়ে আরবী, উর্দু, ফার্সী ভাষায় বিভিন্ন কিতাবে অসাধারণ পাণ্ডিত্য অর্জন করেন এবং দাওরাহ্-এ ফিক্বহ্-এ প্রথম শ্রেণীতে উত্তীর্ণ হন। তিনি দেশে প্রত্যাবর্তন করে হযরত গাউসুল আযম মাইজভাণ্ডারী (ক.)-এর সান্নিধ্যে গিয়ে ইলমে তাসাউফ ও ইলমে লাদুন্নী হাসিল করেন।
ইসলামী শিক্ষার প্রসার :
ভারত থেকে প্রত্যাবর্তনের পর তিনি আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআতের আক্বীদাহ্ভিত্তিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন। সেই লক্ষ্যে ১৯৩২ সালে নিজ গ্রাম মেখল ফকিরহাটে প্রতিষ্ঠা করেন এমদাদুল উলূম আজিজিয়া সুন্নিয়া মাদরাসা। নিজের ক্রয়কৃত জমিতে মাদরাসাটি স্থাপন করেন। ১৯৫৪ সালে চট্টগ্রাম পাঁচলাইশ থানার ষোলশহরে হযরত আল্লামা সৈয়দ আহমদ শাহ সিরিকোটি (রাহ.) প্রতিষ্ঠিত এশিয়া বিখ্যাত দীনী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া মাদরাসা প্রতিষ্ঠায় তাঁর উল্লেখযোগ্য অবদান ছিল। তিনি চট্টগ্রামের বিশিষ্ট দানবীর ও শিক্ষানুরাগীদের আর্থিক আনুদান সংগ্রহ করে বহু মাদরাসা প্রতিষ্ঠায় অবদান রাখেন। হাটহাজারী আজিজিয়া অদুদিয়া সুন্নিয়া মাদরাসা, রাউজান ফতেহ নগর অদুদিয়া মাদরাাসা, রাঙ্গুনিয়া চন্দ্রঘোনা মাদরাসা-এ তৈয়বিয়া অদুদিয়া সুন্নিয়া ও লালিয়ারহাট হামিদিয়া হোসাইনিয়া মাদরাাসা উল্লেখযোগ্য। – চলমান।

 

আরো সংবাদ

%d bloggers like this: