এই মাত্র পাওয়া :

বাংলাদেশ , শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১

জমকালো আয়োজনে দৈনিক সাঙ্গু’র অনলাইন ভার্সন উদ্বোধন

লেখক : দৈনিক সাঙ্গু | প্রকাশ: ২০২১-০১-০৩ ০২:৫৪:৫৭

 

নিজস্ব প্রতিবেদক:

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, সংবাদপত্র হচ্ছে সমাজ বদলের অন্যতম হাতিয়ার। সংবাদপত্রই বস্তুনিষ্ঠ ও সরকারের গঠনমূলক সমালোচনা ও সংবাদ পরিবেশন করে সরকারকে সঠিক পথে পরিচালনার পথ দেখায়। হয়তো সংবাদপত্রে ঝুঁকি আছে, কিন্তু সত্য ও সঠিক কথা তো গণমাধ্যমকেই বলতে হবে। আর এর মাধ্যমেই সঠিক তথ্য প্রকাশ হয়। তিনি বলেন, চট্টগ্রাম হচ্ছে বাংলাদেশের প্রাণ। তিনি বলেন, চট্টগ্রামের উন্নয়ন মানে বাংলাদেশের উন্নয়ন। তাই চট্টগ্রামকে সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বাঁচিয়ে রাখতে হবে।
দৈনিক সাঙ্গু’র অনলাইন ভার্সন তথ্যমন্ত্রণালয় কর্তৃক অনুমোদনের পর শনিবার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আ জ ম নাছির এসব কথা বলেন।
শনিবার বিকেল তিনটায় দৈনিক সাঙ্গু কার্যালয়ে এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পত্রিকার সম্পাদক কবির হোসেন সিদ্দিকী।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কয়েক পর্বে কেক কাটেন অতিথিবৃন্দ।
জমকালো আয়োজনে দৈনিক সাঙ্গুর অনলাইন ভার্সন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিভিন্ন পর্যায়ে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য খাদিজাতুল আনোয়ার সনি, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. শিরিণ আখতার, বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের জেনারেল ম্যানেজার নিতাই কুমার ভট্টাচার্য, জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও নগর জাতীয় পার্টির সভাপতি সোলায়মান আলম শেঠ, সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি, চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মঈন উদ্দিন মাহমুদ সোহেল, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, এলবিয়ান গ্রুপের চেয়ারম্যান রাইসুল ইসলাম সৈকত, চট্টগ্রাম জুনিয়ার চেম্বারের সেক্রেটারী শান শাহেদ প্রমুখ।
প্রসঙ্গ, সম্প্রতি দৈনিক সাঙ্গুর অনলাইন ভার্সন তথ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক নিবন্ধিত হয়।
সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য খাদিজাতুল আনোয়ার সনি বলেন, গণমাধ্যম এখন অত্যন্ত শক্তিশালী ভূমিকা রাখে। তবে বর্তমান ডিজিটাল যুগে বাংলাদেশে গণমাধ্যমের অনলাইন ভার্সন অত্যন্ত কার্যকর ও জনপ্রিয়। এখন মানুষ যে কোনো সময় অনলাইনের মাধ্যমে যে কোনো সংবাদ, তথ্য জেনে নিতে পারে। তবে আমাদের খেয়াল রাখতে হবে অনলাইন গণমাধ্যম যাতে সঠিক ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ তুলে ধরে। কেননা, অনলাইন দ্রুত মানুষের কাছে ছড়িয়ে পড়ে। তাই গুজব রটানো সংবাদ হলে সমাজে-রাষ্ট্রে নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার গণমাধ্যমের উন্নয়নে, সাংবাদিকদের উন্নয়নে নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে। আর এর সুফলও পাচ্ছে।
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরিণ আখতার বলেন, একজন শিক্ষক হিসেবে আমি প্রত্যাশা করি সবকিছু ইতিবাচকভাবে ফুটে উঠুক, গণমাধ্যম সঠিক ও তথ্যনির্ভর সংবাদ তুলে ধরে ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, সমাজ ও রাষ্ট্রের দিকনির্দেশনা হিসেবে কাজ করবে। তিনি বলেন, করোনাকালে যখন মানুষ অনেকটা ঘরবন্দী হয়ে পড়েছিল, তখন সংবাদপত্রের অনলাইন ভার্সন তাদের জন্য একটি সফল সঙ্গী হয়ে উঠেছিল। যারা সংবাদপত্রে পড়ে অভ্যস্ত তারা অনলাইন ভার্সনের মাধ্যমে সে চাহিনা পূরণ করেছে।
জাতীয় পার্টির নগর সভাপতি সোলায়মান আলম শেঠ বলেন, সংবাদপত্র হলো রাজনীতির অঙ্গনে অনন্য ভূমিকা পালনকারী। সংবাদপত্রই রাজনীতির সকল সংবাদকে মানুষের কাছে তুলে ধরে, সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করার সুযোগ পায় সংবাদপত্র। তিনি বলেন, দৈনিক সাঙ্গু দেখতে দেখতে ১৮ পেরিয়ে ১৯ এর দ্বারপ্রান্তে। এ সময়ে দৈনিক সাঙ্গু বৃহত্তর চট্টগ্রামের পাঠকের মন জয় করতে পেরেছে। বিশেষ করে করোনাকালে চট্টগ্রামে অনেক পত্রিকা প্রকাশনা যখন বন্ধ বা সীমিত হয়ে পড়ে, তখন দৈনিক সাঙ্গু তাদের প্রকাশনা অব্যাহত রেখে পাঠকের নজর কাড়তে সক্ষম হয়। তিনি বলেন, বিশেষ করে আমরা তখন দৈনিক সাঙ্গুর অনলাইন ভার্সনের প্রতি ঝুঁকে পড়ে সংবাদ জানার সুযোগ পেয়েছিলাম।
তিনি নিজেকে দৈনিক সাঙ্গুর একজন শুভাকাঙ্খি উল্লেখ করে বলেন, সাঙ্গুর সুখে দুঃখে বিগত সময়ের মত আগামীতে আমার সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।
বাংলাদেশ টেলিভিশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের জেনারেল ম্যানেজার নিতাই কুমার ভট্টাচার্য বলেন, গণমাধ্যম সরকারের নানা দিক তুলে ধরে অনন্য ভূমিকা পালন করে। তবে আমাদের মনে রাখতে হবে, কেবল নেতিবাচক সমালোচনা বা সংবাদ তুলে ধরা গণমাধ্যমের কাজ নয়। ইতিবাচক দিকগুলোও যদি গণমাধ্যমে তুলে ধরা হয়, তাহলে সমাজ ও রাষ্ট্রে ইতিবাচক সুফল আসবে। তিনি বলেন, দৈনিক সাঙ্গু যেন ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে সঠিক সংবাদ তুলে ধরে-আমি এমনটাই প্রত্যাশা করি।
সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাাব্বি বলেন, গণমাধ্যমের ভূমিকা বর্তমান সময়ে অনস্বীকার্য। তাই গণমাধ্যমকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে। সিভিল সার্জন বিশেষ করে করোনাকালে যাতে আতঙ্ক না ছড়ায় সে ব্যাপারে সংবাদ প্রচার-প্রকাশে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান।
চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মঈন উদ্দিন মাহমুদ সোহেল বলেন, বর্তমান সময়ে গণমাধ্যমের ভূমিকা অত্যন্ত কার্যকর ও প্রশংসার দাবি রাখে। বিশেষ করে করোনাকালে পুলিশসহ ফ্রন্টলাইন ফাইটাররা যখন মানুষের কল্যাণে, সেবায় এগিয়ে আসে, গণমাধ্যমও তখন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করোনার সার্বিক পরিস্থিতি তুলে ধরে। তিনি বলেন, গণমাধ্যম আর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সমান্তরালভাবে একে অপরের পরিপূরক। কেননা আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সমাজ থেকে সকল অনাচার, অপরাধকে নির্মূল করতে কাজ করে, আর গণমাধ্যম সেসব চিত্রকে তুলে ধরে। তিনি বলেন, গণমাধ্যম ইতিবাচকভাবে যেকোনো সংবাদ তুলে ধরলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জন্য কাজ করতে সুবিধা হয়।
চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বলেন, সংবাদপত্র সমাজের দর্পণ। তাই এই দর্পণে যাতে সবকিছু স্বচ্ছ ও স্পষ্টভাবে ফুটে ওঠে সে ব্যাপারে গণমাধ্যমের সবাইকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করা প্রয়োজন।
এলবিয়ন গ্রুপের চেয়ারম্যান রাইসুল ইসলাম সৈকত বলেন, দৈনিক সাঙ্গুর সাথে বিগত সময়ের মতো আগামীতেও থাকবো। তিনি নিজেকে দৈনিক সাঙ্গুর একজন শুভাকাঙ্খি উল্লেখ করে বলেন, গণমাধ্যমই পারে ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ গড়ে তুলতে। আর দৈনিক সাঙ্গু এ ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।
চট্টগ্রাম জুনিয়ার চেম্বারের সেক্রেটারী শান শাহেদ বলেন, দৈনিক সাঙ্গুর সাথে বিগত সময়ে যেমন ছিলাম, আগামীতেও ঘনিষ্ঠভাবে থাকবো। তিনি বলেন, গণমাধ্যমকে নারীবান্ধব ভূমিকা পালনের এগিয়ে আসতে হবে।
এছাড়া অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন দি লাইটিং স্টাইল এর প্রোপ্রাইটার আব্দুর রাজ্জাক, চিটাগং ক্লাব লিমিটেড এর ভাইস চেয়ারম্যান মঞ্জুরুল হক, চিটাগাং জুনিয়র চেম্বারের প্রেসিডেন্ট টিপু সুলতান সিকদার, চাটাগাঁইয়া নওজোয়ানের সভাপতি জামাল আহম্মেদ, মানবাধিকার কাউন্সিল চট্টগ্রাম জেলার সাধারণ সম্পাদক জাফর ইকবাল বক্তব্য রাখেন।
এর আগে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ফিতা ও কেক কেটে অনলাইন ভার্সন উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ.জ.ম নাছির উদ্দীন।
এ সময় অন্যান্যের মধ্যে দৈনিক সাঙ্গুর যুগ্ম সম্পাদক বদরুল ইসলাম মাসুদ, সকালের চট্টগ্রাম এর নির্বাহী সম্পাদক মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, দৈনিক সাঙ্গুর চীফ রিপোর্টার জান্নাতুল ফেরদৌস রুমি, বিজ্ঞাপন ইনচার্জ মোহাম্মদ এরশাদ, নিজস্ব প্রতিবেদক মহিন উদ্দিন আরিফ, নুরুল আলম চৌধুরী, নাছির উদ্দিন, মঈন উদ্দিন, সিনিয়র ফটো সাংবাদিক মো. আলমগীর, নিজস্ব প্রতিবেদক লোহাগাড়া জাহেদুল ইসলাম, নিজস্ব প্রতিবেদক, মিরসরাই মোহাম্মদ ইউসুফ, নিজস্ব প্রতিবেদক পটিয়া তাপস দে আকাশ, সাতকানিয়া প্রতিনিধি নুরুল ইসলাম সবুজ, চন্দনাইশ প্রতিনিধি এম ফয়েজুর রহমান, দৈনিক বায়ান্নর সাতকানিয়া প্রতিনিধি শংকর কুমার নাথ, কম্পিউটার ইনচার্জ আবুল হাসান, অফিস সহকারী তৌহিদ ও নওশীন উপস্থিত ছিলেন।
সমগ্র অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন নিজস্ব প্রতিবেদক ইলিয়াছ রিপন।

Print Friendly and PDF