এই মাত্র পাওয়া :

বাংলাদেশ , বুধবার, ১৫ জুলাই ২০২০

করোনা আক্রান্ত পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুরকে ঢাকা সিএমএইচ-এ নেয়া হচ্ছে

লেখক : admin | প্রকাশ: ২০২০-০৬-০৭ ১২:২১:৫৭



নিজস্ব প্রতিবেদক:

করোনায় আক্রান্ত (কোভিড-১৯) পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী ও বান্দরবান থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য বীর বাহাদুর উশৈসিংকে আজ রোববার উন্নত চিকিৎসা সেবা দেয়ার জন্য ঢাকা সম্মিলিতি সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ)-এ নেয়া হচ্ছে। আজই হেলিকপ্টারযোগে তাঁকে ঢাকায় নেয়া হচ্ছে।

তবে বর্তমানে তিনি সুস্থ আছেন বলে বান্দরবান প্রেসক্লাবের সভাপতি মনিরুল ইসলাম মনু জানিয়েছেন। তিনি জানান, বীর বাহাদুরের সাথে আজ সকালেও তারা কথা বলেছেন। বীর বাহাদুরের মনোবল শক্ত আছে। তবে দ্রুত সুস্থ ও উন্নত চিকিৎসা সেবা দেয়ার লক্ষ্যেই বীর বাহাদুরকে বান্দরবান নিজ বাসা থেকে হেলিকপ্টারযোগে ঢাকা সিএমএইচ-এ পাঠানো হচ্ছে।



এদিকে মন্ত্রী বীর বাহাদুর এর এপিএস সাদেক হোসেন চৌধুরীর ফেসবুক পেজে বীর বাহাদুর এমপিকে আজ রোবাবার ঢাকা সিএমএচ-এ পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

সাদেক হোসেন চৌধুরী ফেসবুকে বীর বাহাদুরের উদ্বৃতি দিয়ে এতে বলা হয়েছে, “আমার কাছে কিছু মনে হয়না। আমি সুস্থ আছি, সবাই দোয়া/আশীর্বাদ করবেন এবং সাবধানে ও নিরাপদে থাকবেন।”

বীর বাহাদুর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক। তিনি ১৯৯১ সাল থেকে (৫ম জাতীয় নির্বাচন) ৩০০ নম্বর বান্দরবান সংসদীয় আসনে জাতীয় সংসদ সদস্য (এমপি) নির্বাচিত হয়ে আসছেন।

শুধু মাঝখানে ১৯৯৬ সালের (৬ষ্ঠ) ১৫ ফেব্রুয়ারির বিতর্কিত নির্বাচনে তিনি আওয়ামী লীগের দলীয় সিদ্ধান্তের কারণে নির্বাচনে অংশ নেননি। তবে ওই বছরই (১৯৯৬ সালে) আবারও ৭ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বীর বাহাদুর বান্দরবান থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ওই বছরই প্রথমবারের মত বেসামরিক কোনো ব্যক্তি পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান মনোনীত হন। উপমন্ত্রীর মর্যাদায় তিনি পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান হয়েছিলেন।

২০০১ সালে নির্বাচনে সারাদেশে আওয়ামী লীগের ভরাডুবি হলেও বীর বাহাদুর বান্দরবান আসন থেকে সেবারও জয়লাভ করেন। ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর নির্বাচনে আবারও বীর বাহাদুর বান্দরবান আসন থেকে এমপি নির্বাচন হন। সেবার আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় গেলে বীর বাহাদুর ফের পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান মনোনীত হন। তবে সেবার তিনি প্রতিমন্ত্রী মর্যাদায় চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন।



চলতি সংসদেও বীর বাহাদুর বান্দরবান আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হন। এবার তিনি পূর্ণমন্ত্রী হিসেবে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পান এবং সে দায়িত্ব এখনও পালন করে আসছেন।

বীর বাহাদুর এর আগে ১৯৮৯ সালে এরশাদ সরকারের আমলে পার্বত্য চট্টগ্রামে বিশেষ বিবেচনায় বান্দরবান, রাঙ্গামাটি ও খাগড়াছড়ি তিন পার্বত্য জেলায় স্থানীয় সরকার পরিষদ (বর্তমানে আইন সংশোধনের মাধ্যমে যা পার্বত্য জেলা পরিষদ হিসেবে পরিচালিত) এর প্রথম প্রত্যক্ষ নির্বাচনে বান্দরবান জেলা থেকে স্থানীয় সরকার পরিষদ সদস্য নির্বাচিত হন।

বীর বাহাদুর একজন ক্রীড়াবিদ হিসেবে পরিচিত। ফুটবল খেলোয়াড় হিসেবে তিনি সুপরিচিত। তিনি একজন রেফারী হিসেবে বর্তমানে ফিফা তালিকাভুক্ত রেফারি।

এলাকায় সাধারণ মানুষের সাথে মিলে মিশে তিনি চলতে পছন্দ করেন। যে কোনো মানুষকে তিনি খুব সহজে কাছে টেনে নিতে পারেন। তিনি এলাকার উন্নয়নে দল, মতের উর্ধে থেকে কাজ করেন। খুব সহজ-সরল-সাধারণ জীবন যাপনের জন্য বীর বাহাদুর বান্দরবানের সকল মানুষের কাছেই সমধিক পরিচিত ও জনপ্রিয়।

Print Friendly and PDF