বাংলাদেশ , শুক্রবার, ৫ জুন ২০২০

‘পানসে’ ঈদ প্রস্তুতি চট্টগ্রামে

লেখক : admin | প্রকাশ: ২০২০-০৫-২৩ ০৪:০৮:৩৩




রুমানা আক্তার:

করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব পাল্টে দিয়েছে চট্টগ্রাম নগরীর ১৩ লাখ নিম্নআয়ের মানুষের ঈদ প্রস্তুতি। তাদের মধ্যে নেই ছেলে সন্তান ও নিজের জন্য নতুন কাপড় কেনার হিড়িক। নেই সেমাই জর্দাসহ হরেক রকম খাবার তৈরির প্রস্তুতি। রাজনৈতিক নেতা কিংবা বিত্তবানরাও তাদের জন্য পাঠাচ্ছে না ঈদ উপহার হিসেবে কাপড়, সেমাইসহ নানান পদের উপহারসামগ্রী। সব মিলিয়ে ‘পানসে’ ঈদ উদযাপনের প্রস্তুতি চলছে খেটে-খাওয়া এ মানুষগুলোর। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বলেন, ‘প্রত্যেক বছর ঈদের আগে শ্রমজীবী ও নিম্নআয়ের মানুয়ের জন্য ঈদের আগে নানান উপহার পাঠানো হতো। করোনার কারণে এবার প্রেক্ষাপট একেবারে পরিবর্তন হয়ে গেছে।’

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, ‘ঈদে সাধারণ মানুষের জন্য কাপড় ও সেমাইয়ের পরিবর্তে ত্রাণসামগ্রী পাঠানো হচ্ছে। এ মহামারীর মধ্যে মানুষের খেয়ে বেঁচে থাকাটাই মুখ্য। তাই এবার ঈদে নেতা-কর্মী ও সাধারণ মানুষের জন্য নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী পাঠানো হচ্ছে।’ বিভিন্ন সূত্রে পাওয়া তথ্যমতে, প্রায় ৭০ লাখ নগরবাসীর চট্টগ্রাম শহরে প্রায় ১৩ লাখ মানুষই হচ্ছে নিম্নআয়ের। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলরদের করা তালিকা অনুযায়ী নগরে নিম্নআয়ের পরিবার আছে ৫ লাখ ৯৪ হাজার।

চট্টগ্রামের নিম্নআয়ের মানুষের মধ্যে সিংহভাগ হচ্ছে রিকশাচালক, পরিবহণ শ্রমিক, সিএনজি ট্যাক্সি ও টেম্পু চালক, দিনমজুর, হোটেল রেস্টুরেন্টের কর্মচারী, ভ্রাম্যমাণ বিক্রেতা, কমিউনিটি সেন্টারের টেবিলবয় অন্যতম। করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকেই এসব শ্রমজীবী মানুষ কার্যত বেকার। আয়-রোজগার বন্ধ থাকায় অনেকে মানবেতন জীবনযাপন করছে।

নগরীর খুলশী এলাকার রেলওয়ে কলোনি বস্তির বাসিন্দা আবু জাফর বলেন, প্রত্যেক বছর ঈদের আগে ছেলে-মেয়ের জন্য নতুন কাপড় ক্রয় করি। করোনার কারণে প্রায় দুই মাস বেকার। তাই এবার সন্তানদের জন্য নতুন কাপড় ক্রয় করতে পারব না।

Print Friendly and PDF