এই মাত্র পাওয়া :

বাংলাদেশ , শুক্রবার, ২৯ মে ২০২০

বান্দরবানে করোনা উপসর্গ নিয়ে ইট ভাটা শ্রমিকের মৃত্যু

লেখক : admin | প্রকাশ: ২০২০-০৫-২২ ২৩:৪৭:৩৭

নিজস্ব প্রতিবেদক,বান্দরবান :

বান্দরবানে করোনা উপসর্গ নিয়ে জাহিদুল ইসলাম নামে এক ইট ভাটা শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।
শ্রমিক জাহিদুল ইসলাম বান্দরবান সদর উপজেলার ক্যামলং মকছুদ কোম্পানীর ইট ভাটার শ্রমিক হিসাবে নিয়োজিত ছিল।
এছাড়া করোনা উপসর্গ নিয়ে শিশুসহ আইসোলেশনে নতুন করে আরও ৪ জন ভর্তি হয়েছেন।
তারাছা ইউপির ছাইংগ্যা দানেশ পাড়া ২ নং ওয়ার্ডের মেম্বার মোঃ মোর্শেদ জানায়, শ্রমিক জাহিদুল ইসলাম বান্দরবান সদর উপজেলার ক্যামলং মকছুদ কোম্পানীর ইট ভাটায় শ্রমিক হিসাবে কাজ করত এবং তার বাড়ী রংপুর। সে ক্যামলং ইট ভাটায় গত এক সপ্তাহ ধরে জ্বর,সর্দি,গলা ব্যাথা ও ডায়রিয়া রোগে ভুগছে।
শুক্রবার দুপুরে লেবার মাঝি ইয়াকুব আলী মোটরসাইকেল যোগে শ্রমিক জাহিদুল ইসলামকে ক্যামলং ইট ভাটা থেকে ছাইংগ্যা দানেশ পাড়া নুরু কোম্পানীর ইট ভাটায় নিয়ে আসে। বিকালে জাহিদুল ইসলাম সেখানে মারা যায়। মারা যাওয়ার পর অন্যান্য শ্রমিকরা তাকে বান্দরবান সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কতর্ব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষনা করে।
তিনি আরো জানান, ঘটনার সংবাদ পেয়ে রোয়াংছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ঘটনা স্থল পরিদর্শন করে নুরু কোম্পানীর ইট ভাটা লকডাউন করেছে।
বান্দরবান সিভিল সার্জন ডা. অংশৈপ্রু জানান,করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া এক ব্যক্তির মৃত দেহ হাসপাতালে এসেছেে। রোগের বর্ননা শুনে মৃত ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে এবং লাশ আত্নীয় স্বজনের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
রোয়াংছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মেহেদী হাসান জানান,করোনা উপসর্গ নিয়ে এক শ্রমিক মারা যাওয়া ইট ভাটাটি লকডাউন করা হয়েছে। এছাড়াও মৃত ব্যক্তির সংস্পর্শে যারা এসেছে শ্রমিকসহ সবাইকে কোয়ারেন্টেইনে রাখার প্রক্রিয়া চলছে।
এই শ্রমিক গত এক সপ্তাহ ধরে ক্যামলং অন্য একটি ইট ভাটায় অসুস্থ্য হয়ে পড়েছে। সেই ইট ভাটাও লকডাউন করার ব্যাপারে জেলা প্রশাসকের সাথে আলোচনা চলছে।
এদিকে করোনা উপসর্গ নিয়ে শ্রমিক মারা যাওয়ার ঘটনায় ছাইংগ্যা দানেশ পাড়ায় বসবাসকারীদের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়েছে।

Print Friendly and PDF